ইমরানের সরকারে যেমন প্রভাব ফেলবে সেনাবাহিনী?

  • ২৭-Jul-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

পাকিস্তানের বর্তমান সেনাপ্রধান কমর জাভেদ বাজওয়ার একজন ক্রিকেটপ্রেমী হিসেবেই পরিচিত। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিতে যাওয়া সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কটা কেমন হবে সেটা নিয়েই এখন চলছে নানা আলোচনা।

ইমরানের সরকার পাক সেনাবাহিনীর হাতের পুতুল হবে বলেই ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। সেনাবাহিনীর সমর্থন না থাকলে ইমরান নির্বাচনে জয়ী হতে পারতেন না বলে মনে করেন অনেকেই।

নির্বাচনে সবচেয়ে বড় দল হিসেবে উঠে এলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি ইমরানের দল পিটিআই (পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ)। সরকার গঠন করতে ইমরানকে নির্ভর করতে হবে মুত্তাদিয়া মজলিস-ই আমল-এর মতো ছোট দল কিংবা সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়লাভকারীদের ওপর। যারা সম্পূর্ণভাবে সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রাধীন। ফলে ইমরানের সরকারের ওপর সেনাবাহিনীর প্রভাব বিস্তার করার বিষয়টি অনেকটা নিশ্চিত বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

পাকিস্তানের সেনাপ্রধানের পদে রাহিল শরিফের অবসরের পরে বাজওয়াকে নিয়োগ দেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। বাজওয়াকে অনেকে ভারতপন্থী হিসেবেও মনে করে থাকেন। ভারতের সাবেক সেনাপ্রধান বিক্রম সিংয়ের নেতৃত্বে এক সময়ে কঙ্গোয় শান্তিরক্ষা মিশনে  কাজ করেছেন তিনি। পাক সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর তাঁর ‘অসাধারণ পেশাদারিত্বের’ প্রশংসাও করেছিলেন বিক্রম সিং। বাজওয়ার দুই সন্তান আলি এবং সাদ ভারতকে নিয়ে তাঁদের বাবার বিশেষ আগ্রহ রয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন। কূটনীতিকরা মনে করছেন, আগামী দিনে ইমরানের ভারত নীতিতে ছায়া ফেলবেন এই সেনাপ্রধান।

রাজনীতিবিদ ইমরান খান বিভিন্ন সময়ে ভারতবিরোধী বিবৃতি দিয়েছেন। কাশ্মীরে আত্মঘাতী হামলাকারীদের প্রতি সমর্থনও জানিয়েছিলেন তিনি। ফলে তাকে নিয়ে ভারতে নেতিবাচক ধারণা রয়েছেই। কিন্তু সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রনে থেকে ইমরান ভারতপন্থী নাকি ভারত বিরোধী নীতি অবলম্বন করেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।

Ads
Ads