অনুপ্রবেশকারীদের গতিবিধি লক্ষ্য রাখছে গোয়েন্দা বাহিনী

  • ৪-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে নেতাদের ঘটে, তাদের (অনুপ্রবেশকারীদের) গতিবিধি লক্ষ্য রাখছে গোয়েন্দাবাহিনী।

শনিবার (০৪ আগস্ট) আওয়ামীলীগের সম্পাদকমন্ডলীর সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। 

কাদের বলেন, মালিক চালক হেলপার বিচারের মুখোমুখি হয়েছে। আমরা মনে হয়, এরমধ্য দিয়ে এ পরিস্থিতিতে সরকার তার জরুরি কাজটি করে ফেলেছে। দুই পরিবারকে ডেকে শান্ত্বনা দিয়েছে,  সহায়তা করেছেন। এবং দুই পরিবারের দায়িত্ব খোদ প্রধানমন্ত্রী নিয়েছেন। ওই দুই পরিবারও শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়েছে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ৯টি দাবি আমলে নিয়ে সরকার বাস্তবায়ন শুরু হয়ে হয়েছে। এরমধ্যে  দুর্ঘটনা কবলিত এলাকায় আন্ডারপাস করার কাজও করা হচ্ছে, এটি সেনাবাহিনী করছে। স্পীড বেকারের দাবির প্রেক্ষিতে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে রাম্বলস্ট্রিটও করা হবে। 

ফিটনেসবিহীন সব গাড়ির রুট পারমিট বাতিল করা হবে, ইতোমধ্যে কাজও শুরু করেছে বিআরটিএ, যোগ করেন মন্ত্রী।  

শিক্ষার্থীদের দাবিনামার যৌক্তিকতা খুজে পেয়েছি। এগুলো বাস্তবায়নেেে পক্রিয়াধীন। তাদের প্রতিবাদের কণ্ঠকে স্বাগত জানিয়েছি। এখানে কোনো গোপনীয়তা নেই। 

কেউ দলীয়ভাবে এ আন্দোলন সমর্থন দিয়েছেন, এটা সরকারবিরোধী আন্দোলনে রূপ দিতে চেয়েছে। আমাদের উদ্বেগ হলো, তাদের শান্তিপূর্ণ ইনোসেন্ট আন্দোলনেে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশ ঘটেছে। এসময় তিনি রাজনৈতিক নেতার ছবি দেখান, যিনি আন্দোলনে ঢুকে পড়েছে। এগুলো খারাপ লক্ষণ। 

যারা শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরতে বলেছেন, তাদের শুভবোধকে স্বাগত জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, তবে যারা কোমলমতিদের আন্দোলনেে ঢুকে রাজনীতির বিষবাষ্প দিতে চেয়েছেন। এর মাধ্যমে নিজেদের রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে চায়, এদের বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে হবে।

অনুপ্রবেশকারীদের গতিবিধি লক্ষ্য রাখছে গোয়েন্দা বাহিনী। তবে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দমন না করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর   নির্দেশনা বাস্তবায়নে পুলিশ ধৈর্যধারন করছে।

তবে শান্তির স্বার্থেে শিক্ষার্থীদের বাড়ি/ক্যাম্পাসে ফেরাতে  অভিভাবকসহ সবার সহযোগিতা চেয়েছেন ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের এর পদত্যাগের দাবির জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির মত নালিশ পার্টির টপ টু বটম নেতারা পদত্যাগ করলে দেশের মানুষ স্বস্তি পাবে।

শংকায় চালকরা নামতে চাইছে না, আমরা নামাতে চেষ্টা করছি, যোগ করেন সড়কমন্ত্রী।          

এসময় উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসে,  একেএম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী,  দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলা,  উপ দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

Ads
Ads