ঈদযাত্রা : ট্রেনে ঘরে ফেরা শুরু

  • ১৭-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে রেলওয়ে প্রথম যেদিনের আগাম টিকিট বিক্রি করেছিল, সেই ট্রেন ছাড়া শুরু হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ আগস্ট) ভোর ৫টায় ঘরমুখো হাজারও মানুষ নিয়ে ঈদের প্রথম ট্রেন ‘বলাকা কমিউটার’ কমলাপুর রেলস্টেশন ছেড়ে গেছে।

কমলাপুর স্টেশনের প্ল্যাটফর্মগুলোতে অন্য স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে যাত্রীর ভিড় বেড়েছে কয়েকগুণ। পুরো স্টেশন জুড়েই ঘরে ফেরা মানুষের ভিড়। কেউ ব্যাগ হাতে, কেউবা পরিজনের হাত ধরে ছুটছেন কাঙ্ক্ষিত ট্রেনের দিকে। ইট-পাথরের শহর ছেড়ে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছেন তারা।

ঈদ আসলেই টিকিটপ্রাপ্তি থেকে শুরু করে বাড়ি পৌঁছানো পর্যন্ত পথে পথে ভোগান্তি পোহাতে হয় ঘরমুখী মানুষদের। তবুও ঘরে ফেরাতেই যেন সব আনন্দ।

রাজধানীর একঘেয়েমি জীবনের সাময়িক বিরতি দিয়ে কর্মজীবী মানুষের সামনে আসে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়ার মুহূর্ত। আর সেই ঈদের আনন্দ প্রিয়জনদের সঙ্গে ভাগাভাগি করতে ঢাকা ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকেই কমলাপুর স্টেশনে সব ট্রেনগুলোতেই ছিল মানুষের উপচে পড়া ভিড়, তবে উত্তরবঙ্গগামী ট্রেনেগুলোতে মানুষের উপস্থিতি ছিল আরও বেশি।

৫ নম্বর প্ল্যাটফর্মে তখন দাঁড়ানো উত্তরবঙ্গের চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস। ট্রেনটি যখন প্ল্যাটফর্মে এসে দাঁড়াল, নিমিষেই যাত্রীতে পূর্ণ হয়ে গেল পুরো ট্রেনটি। তখনও যাত্রীরা আসছেন টিকিট অনুযায়ী, উঠে যাচ্ছেন নির্দিষ্ট বগিতে। ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল সকাল ৮টায়। কিন্তু বিলম্ব করে ট্রেনটি স্টেশনে আসায় ৮ টা ৫০ মিনিটেও ছেড়ে যেতে পারেনি।

ট্রেনে ঈদযাত্রা বিষয়ে বলতে গিয়ে কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ঈদে ঘরে ফেরা মানুষ যেমন সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করেছেন, ঠিক তেমনি সুশৃঙ্খলভাবে তারা চলাচল করতে পারবেন বলে আশা করি। সেইসঙ্গে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কেউ যেন ট্রেনের ছাদে বা বাফারে যাতায়াত না করেন, সেই প্রত্যাশাও আমরা করছি। যাত্রী চাপ মাথায় রেখে প্রতিটি ট্রেনে কমবেশি বগি সংযুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে নির্ধারিত নিয়মিত ট্রেন ছাড়াও শনিবার (১৮ আগস্ট) থেকে শুরু হচ্ছে ঈদের বিশেষ ট্রেন। এবারের ঈদযাত্রায় যাত্রীদের সুবিধার্থে ৯ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে।

/ই

 

Ads
Ads