বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী, সময় এখন বিনিয়োগের: প্রধানমন্ত্রী

  • ২-Jul-২০১৯ ০৯:৪০ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বাংলাদেশ এখন বিনিয়োগের নিরাপদ ঠিকানা। অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী, সময় এখন বাংলাদেশে বিনিয়োগের স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (০২ জুলাই) বিকেলে চীনের দালিয়ানে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের একটি প্যানেল আলোচনায় অংশ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। 

যেখানে কানাডার মন্ত্রী ম্যারি এনজি, ও দু'জন বিনিয়োগকারীর সাথে মুক্ত আলোচনায় বসেন শেখ হাসিনা। নিউইয়র্ক টাইমসের জ্যেষ্ঠ লেখক কেইথ ব্র্যাডশার এর সঞ্চালনায় বাংলাদেশের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে একথা জানান।

আঞ্চলিক অর্থনৈতিক জোটে সম্পৃক্ত হওয়ার আগ্রহের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সুন্দর আগামী গড়তে চায় বাংলাদেশ।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের উন্নতি প্রয়োজন, আমাদের দেশের মানুষের মানুষের জন্য উন্নতি প্রয়োজন। আমি আমার দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আর এটা করতে আমদের অনেক বেশি বিনিয়োগ প্রয়োজন।   

আলোচনার পাশাপাশি সেখানে উপস্থিত বিশিষ্টজনদের প্রশ্নোত্তরে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ নিজস্ব সক্ষমতায় এগিয়ে যেতে পারে, তা প্রমাণিত। সমন্বিত উন্নয়নে প্রয়োজন আঞ্চলিক অর্থনৈতিক জোটের।

বিশ্ব পরাশক্তির দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ চীন ও ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশ কীভাবে একই পর্যায়ের বন্ধুত্ব রাখছে? এ প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের অবস্থানের কথা তুলে ধরে চীন সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা (বাংলাদেশ) কারো সঙ্গে যুদ্ধ বা সংঘাতে জড়াতে চাই না। তাদের দু’দেশের মধ্যেকার যে ইস্যু; সেটা তাদের ইস্যু।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রের মূলনীতি হলো সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে শত্রুতা নয়। আমরা কারো সঙ্গে যুদ্ধ বা সংঘাতে জড়াতে চাই না।

শেখ হাসিনা বলেন, তাদের দু’দেশের (চীন ও ভারত) মধ্যেকার যে ইস্যু; সেটা তাদের ইস্যু। বাংলাদেশ সবার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং এ পর্যন্ত সফল হয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ হিসেবে লক্ষ্য পূরণে বাংলাদেশের সব বন্ধুরই প্রয়োজন। আমাদের বন্ধুত্ব পারস্পরিক সম্মান ও বিশ্বাসের। আমরা সবাই আমাদের জনগণের কল্যাণ চাই।

 

/কে 

Ads
Ads