অঝোরে কাঁদলেন রিফাতের বাবা, বিচার চাইলেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে

  • ২৯-Jun-২০১৯ ০৬:২০ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একমাত্র সন্তান রিফাতকে হারিয়ে এখন পাগলপ্রায় তার বাবা-মা। বাড়িতে চলছে শোকের মাতম, বুকফাটা আর্তনাদ। রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল প্রেসক্লাবে এসে কাঁদতে কাঁদতে ছেলেহত্যার বিচার চাইলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে। তার কান্না দেখে উপস্থিত সবার চোখে অশ্রু ছলছল করে। 

শনিবার (২৯ জুলাই) সকালে বরগুনা প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে শহরে একটি বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে নানা শ্রেণি-পেশার তিন সহস্রাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করে।

সমাবেশ নিহত রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বলেন, বাবা মারা গেলে ছেলে এতিম হয়। আমি এতিম হয়ে গেছি। আমার একমাত্র ছেলেকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে, তা পুরো বিশ্ববাসী দেখেছে। আমার ছেলে সকালে তার মায়ের কাছ থেকে পাঁচশ টাকা নিয়ে বেরিয়ে লাশ হয়ে বাড়িতে ফিরেছে। কিন্তু আমার ছেলের হত্যাকারীদের পুলিশ এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার ছেলের হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল আহসান মহারাজ সমাবেশে বলেন, রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডে জড়িত নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজীসহ অন্যরা বরগুনায় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী। তাদের নামে মাদক ব্যসবা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। এসব মামলায় পুলিশ তাদের অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে। এরা কাদের প্রশ্রয়ে বরগুনায় এরকম একটি নির্মম হত্যাকা-সহ মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত ছিল, সেই প্রশ্রয়দাতাদেরও খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে অনুরোধ জানাই।

সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রইসুল আলম রিপন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাহাবউদ্দীন সাবু, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সুনাম দেবনাথ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার (২৬ জুন) সকালে স্ত্রীকে কলেজে নিয়ে যান রিফাত শরীফ (২২)। কলেজ থেকে ফেরার পথে সামনের রাস্তায় প্রকাশ্য রিফাতের ওপর হামলা করে একদল দুর্বৃত্ত। এসময় স্ত্রী আয়েশা তাদের বাধা দিয়েও আটকাতে পারেননি। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রিফাতকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওইদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রিফাত।

Ads
Ads