স্টার্কে ভর করে উইন্ডিজকে ১৫ রানে হারাল অস্ট্রেলিয়া

  • ৭-Jun-২০১৯ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: স্পোর্টস ডেস্ক ::

চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে উইন্ডিজের বিপক্ষে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বাঁ-হাতি পেসার মিচেল স্টার্কের বোলিং নৈপুণ্যে ক্যারিবীয়দের ১৫ রানে হারায় অজিরা।

বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) নটিংহামের ট্রেন্ট ব্রিজে জয়ের জন্য উইন্ডিজকে ২৮৯ রানের টার্গেট দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭৩ রান তুলতে সক্ষম হয় ক্যারবীয়রা।

এর আগে টস জিতে অজিদের ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নটিংহামের ট্রেন্ট ব্রিজে দলীয় ২৬ রানের মধ্যে বিদায় নেন দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ (৬) ও ডেভিড ওয়ার্নার (৩)।

এরপর উসমান খাজা ব্যক্তিগত ১৩ রান করে আন্দ্রে রাসেলের বলে শাই হোপের হাতে তালু বন্দি হন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও ক্রিজে স্থায়ী হতে পারেননি। দলীয় ৩৮ রানে বিদায় নেন তিনি। মার্কাস স্টোয়নিস ১৯ রানে আউট হলে ৭৯ রানে টপ অর্ডারের পাঁচ উইকেটে হারিয়ে চাপে পড়ে অজিরা।

বিপাকে পড়া অজিদের টেনে তোলার দায়িত্ব নেন সাবেক দলপতি স্টিভ স্মিথ এবং অ্যালেক্স ক্যারি। ৬৮ রানের জুটিও গড়েন তারা। ইনিংসের ৩১তম ওভারে আন্দ্রে রাসেল আবারও আঘাত হানেন অজি শিবিরে, ফিরিয়ে দেন ক্যারিকে। এবারও উইন্ডিজদের উইকেটের সাথে নাম লেখান শাই হোপ। ক্যারিবীয়ান এই উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে ধরা পড়ার আগে ক্যারি ৫৫ বলে সাতটি বাউন্ডারিতে ৪৫ রান করেন ক্যারি।

এরপর স্মিথ-কোল্টার নাইল দলকে নিয়ে এগুতে থাকেন। স্কোরবোর্ডে ১০২ রান যোগ করেন তারা। আট নাম্বার উইকেটে বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ জুটিও এটি।

ওশানে থমাসের করা ৪৫তম ওভারে বাউন্ডারি সীমানায় ধরা পড়েন স্মিথ। কটরেলের দুর্দান্ত এক ক্যাচে ফেরার আগে স্মিথ করেন ৭৩ রান। তার ১০৩ বলে সাজানো ইনিংসে ছিল সাতটি চারের মার। ২৪৯ রানের মাথায় অস্ট্রেলিয়া সপ্তম উইকেট হারায়। ৪৭তম ওভারে ২ রান করা প্যাট কামিন্সকে ফিরিয়ে দেন ব্রাথওয়েট।

আট নম্বরে নামা কোল্টার নাইল করেন ইনিংস সর্বোচ্চ ৯২ রান। অজি এই পেসারের আগের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ছিল ৩৪ রান। আজ ৮ রানের জন্য সেঞ্চুরিবঞ্চিত হন। ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে কোল্টার নাইল ইনিংসের ৪৯তম ওভারে বিদায় নেন। ব্রাথওয়েটের বলে হোল্ডারের হাতে ধরা পড়ার আগে ৬০ বলে আটটি চার আর চারটি ছক্কা হাঁকান কোল্টার নাইল।

একই ওভারে ব্রাথওয়েট ফিরিয়ে দেন মিচেল স্টার্ককে (৮)। অ্যাডাম জাম্পা ব্যাট করার সুযোগ পাননি। সেই সাথে সব কয়টি হারিয়ে ২৮৮ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে অস্ট্রেলিয়া।

উইন্ডিজের হয়ে কার্লোস ব্র্যাথওয়েট নেন ৩টি, ওশান থমাস, শেল্ডন কটরেল ও আন্দ্রে রাসেল প্রত্যেকে নেন ২টি আর বাকী ১টি উইকেট নেন জেসন হোল্ডার।

২৮৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি উইন্ডিজের। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে প্যাট কামিন্সের বলে দ্বিতীয় স্লিপে ধরা পড়েন ওপেনার এভিন লুইস। দলীয় ৭ রানে উইন্ডিজরা প্রথম উইকেট হারায়।

তৃতীয় ওভারে মিচেল স্টার্কের বল স্টাম্প ছুঁয়ে গেলে আম্পায়ার ক্যাচের সিদ্ধান্ত দেন। ক্রিস গেইল রিভিউ নিলে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় গেইলের ব্যাটে বল লাগেনি। স্টাম্পে বল লেগে শব্দ হলেও বেইল উঠেনি বা পড়েনি। বেঁচে যান গেইল। একই ওভারে গেইলকে এলবির সিদ্ধান্ত জানিয়ে আউট ঘোষণা করেন আম্পায়ার। এবারও রিভিউ নেন গেইল। রিপ্লে দেখে সিদ্ধান্ত জানানো হয় ইউনিভার্স বস নটআউট।

পঞ্চম ওভারে মিচেল স্টার্কের বলে আরেকবার এলবির ফাঁদে পড়েন গেইল। এবারও রিভিউ চেয়ে আবেদন করেন উইন্ডিজ ওপেনার। তবে, এ যাত্রায় বাঁচতে পারেননি ১৭ বলে চারটি চারের সাহায্যে ২১ রান করা গেইল। দলীয় ৩১ রানের মাথায় দুই ওপেনারকে হারায় ক্যারিবীয়ানরা।

২০তম ওভারে অজি স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ফিরিয়ে দেন নিকোলাস পুরানকে। অ্যারন ফিঞ্চের তালুবন্দি হওয়ার আগে তিনি করেন ৩৬ বল পাঁচটি চার আর একটি ছক্কার সাহায্যে ৪০ রান। দলীয় ৯৯ রানে উইন্ডিজ হারায় তৃতীয় উইকেট।

এরপর শাই হোপকে সাথে নিয়ে দেখেশুনেই খেলছিলেন শিমরন হেটমায়ার। কিন্তু ব্যক্তিগত ২১ রানে রান আউটের ফাঁদে পড়েন তিনি। এতে চাপে পড়ে উইন্ডিজ।

দলীয় ১৯০ রানে ফিফটি করে প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলেন শাই হোপ। ৩৫তম ওভারে প্যাট কামিন্সের বলে খাজার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন হোপ। আউট হবার আগে তিনি করেন ১০৫ বলে ৬৮ রান।

৩৯তম ওভারে স্টার্ক ফিরিয়ে দেন আন্দ্রে রাসেলকে। ঝড় তোলার আগেই বিদায় নেন রাসেল। ম্যাক্সওয়েলের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেওয়ার আগে ১১ বলে দুই চার, এক ছয়ে রাসেল করেন ১৫ রান। দলীয় ২১৬ রানের মাথায় উইন্ডিজ হারায় ষষ্ঠ উইকেট।

দলীয় ২৫২ রানের মাথায় বিদায় নেন কার্লোস ব্রাথওয়েট। মিচেল স্টার্কের স্লোয়ারে ফিঞ্চের হাতে ধরা পড়ার আগে ১৭ বলে এক চার আর এক ছক্কায় তিনি করেন ১৬ রান। একই ওভারে স্টার্ক ফেরান উইন্ডিজ দলপতি জেসন হোল্ডারকে। এক প্রান্ত আগলে রেখে দলকে টানতে থাকা হোল্ডার এক্সট্রা বাউন্সে শর্ট ফাইনলেগে অ্যাডাম জাম্পার হাতে ধরা পড়েন। তার আগে উইন্ডিজ দলপতি ৫৭ বলে সাতটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৫১ রান।

৪৮তম ওভারে দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে শেলডন কটরেলকে (১) বোল্ড করেন মিচেল স্টার্ক। ইনিংসের শেষ চার বলে চারটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে অপরাজিত থাকেন ১৮ বলে ১৯ রান করা অ্যাশলে নার্শ।

১০ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে ৫টি উইকেট তুলে নেন অজি পেসার মিচেল স্টার্ক। এছাড়া প্যাট কামিন্স ২ ও স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা নেন ১টি উইকেট।

Ads
Ads