জাবালে নূরের সেই ঘাতক চালকের ৭ দিনের রিমান্ড

  • ১-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় জাবালে নূর পরিবহনের চালক মাসুম বিল্লাহকে সাত দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। শিক্ষার্থীদের ওপর উঠে যাওয়া বাসটির চালক ছিলেন তিনি।

নিহত কলেজছাত্রী দিয়া খানম মিমের বাবার করা মামলায় এই চালককে বরগুনা থেকে গ্রেপ্তারের পর বুধবার (০১ আগস্ট) ঢাকার হাকিম আদালতে হাজির করে সাত দিনের হেফাজতের আবেদন করে গোয়েন্দা পুলিশ।

শুনানি শেষে মহানগর হাকিম এ এইচ এম তোয়াহা সাত দিন রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলাটিতে দণ্ডবিধির ২৭৯ ,৩০৪ (খ) ধারার সঙ্গে ৩০৪ ধারায় মাসুম বিল্লাহর (৩০) রিমান্ড চান ডিবি পরিদর্শক কাজী শরীফুল ইসলাম।

৩০৪ ধারার অভিযোগ হলে অপরাধজনক নরহত্যা। অর্থাৎ খুনের উদ্দেশ্য না থাকলেও হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। এ ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

রিমান্ড আবেদনের শুনানির সময় নিয়ম অনুযায়ী এজলাসের কাঠগড়ায় তোলা হয়নি মাসুমকে। তাকে রাখা হয়েছিল আদালত চত্বরে পুলিশ ভ্যানে। শুনানিতে তার পক্ষে কোনো আইনজীবীও ছিলেন না।

রিমান্ড আবেদন বলা হয়, গত ২৯ জুলাই বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস আরেকটি বাসের সাথে পাল্লা দিয়ে বেপরোয়া গতিতে হোটেল র‌্যাডিসনের বিপরীত পাশে জিল্লুর রহমান ফ্লাইওভারের সামনে বাসে ওঠার অপেক্ষায় থাকা শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের ১৪/১৫ জন ছাত্র ছাত্রীর উপর গাড়িটি তুলে দেয়।

এ ঘটনায় শহীদ রমিজ উদ্দিন কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও বিজ্ঞান বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম রাজীব মারা যায়। এছাড়া আরও কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী আহত হয়।

এ ঘটনায় নিহত দিয়া খানম মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম এ মামলা দায়ের করেন।

মঙ্গলবার একই মামলায় এনায়েত হোসেন, সোহাগ আলী, রিপন হোসন এবং জোবায়ের হোসেন নামে গ্রেফতার আরো ৪ আসামির রিমান্ড শুনানির জন্য আগামী ৬ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত।

/ই

Ads
Ads