যেসব জেলায় বজ্রপাতে নিহত ৯

  • ২৫-মে-২০১৯ ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বেশ কয়েকদিনের টানা দাবদাহের পর শুক্রবার সকাল থেমে শুরু হয়ে সারারাত ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির সময় হওয়া বজ্রপাতে অন্তত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে সিরাজগঞ্জে ৪জন, হবিগঞ্জে ৩জন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার ২জন। 

সিরাজগঞ্জ:

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার দুই গ্রামে বজ্রপাতে চার ধানকাটা শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন আরও তিন শ্রমিক। শনিবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার রামাইল ও ওলিদহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

বড়পাঙ্গাশী ইউপি চেয়ারম্যান লিটন জানান, উপজেলা শলকগ্রাম থেকে ৭-৮ জন শ্রমিক ওই গ্রামের চুক্তিতে ধান কাটতে আসেন। রাতের খাবার খেয়ে শ্রমিকরা রামাইল গ্রামের খোলায় ঘুমিয়ে পড়েন।

রাত দেড়টার দিকে হঠাৎ বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই দুই ঘুমন্ত শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এসময় আহত হন তিনজন। আহতদের উপজেলা ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে একই সময় উপজেলার সলঙ্গা ইউনিয়নে ওলিদহ গ্রামে বজ্রপাতে আরও ২ ধানকাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।উপজেলা ইউএনও আরিফুজ্জামান জানান, বজ্রপাতে দুই গ্রামের নিহতদের খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে লোক পাঠানো হয়েছে।

হবিগঞ্জ:

শুক্রবার সকালের দিকে বৃষ্টির সময় বাড়ির পাশে হাওরে মাছ ধরতে যান হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কৃষক সিজিল মিয়া (৪৫)। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এদিকে সকাল ১১টার দিকে বাড়ির পাশে ধান কাটতে যান একই উপজেলার চা শ্রমিক তরুণী সীমা উরাও (২৬)। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এছাড়া দুপুরের দিকে মাধবপুর উপজেলার ছানকা বুল্লা গ্রামে জমিতে ধান কাটতে যান ফয়সল মিয়া (৪৫)। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

কুমিল্লা:

শুক্রবার সন্ধ্যায় কুমিল্লার হোমনা উপজেলায় ধানি জমিতে কাজ করতে বজ্রপাতে নিহত হয়েছে স্কুলছাত্র ফাহাদ (১৪)। ফাহাদ হোমনা উপজেলার পাতালিয়াকান্দি গ্রামের মোসলেহ উদ্দিনের ছেলে ও দুলালপুর চন্দ্রমনি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

এর আগে দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলায় বজ্রপাতে রাফি উদ্দিন আহমেদ নামে এক ইমামের মৃত্যু হয়েছে। রাফি নাসিরনগর উপজেলার দাঁতমণ্ডল গ্রামের মো. শাহনেওয়াজ মিয়ার ছেলে। তিনি উপজেলার দাঁতমণ্ডল জামে মসজিদের ইমাম ছিলেন।

 

/কে 

Ads
Ads