রুমিনকে মনোনয়ন দেওয়াই ক্ষেপে গিয়ে একি বললেন আফরোজা আব্বাস!

  • ২০-মে-২০১৯ ০৯:২৩ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একাদশ জাতীয় সংসদে বিএনপির জন্য নির্ধারিত একমাত্র সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি হচ্ছেন দলটির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। ইতোমধ্যে মনোনয়ন ফরম জমাও দিয়েছেন তিনি। 

সোমবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেমের কাছে তিনি মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এদিকে সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির মনোনয়ন পাওয়ায় দলের সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায়। তিনি নিজেও সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন।

নিপুণের পাশাপাশি সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন নিয়ে বেশ আলোচনায় ছিলেন মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস এবং আলোচনায় অন্য অনেকের চেয়ে এগিয়েও ছিলেন তিনি। ভাবা হচ্ছিলো রাজপথে লড়াই-সংগ্রামে এগিয়ে থাকা কাউকে হয়তো বসানো হবে সংরক্ষিত নারী আসনে। 

এরপরও ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানাকে কেনো মনোনয়ন দেওয়া হলো এটা নিয়ে চুল ছেড়া বিশ্লেষণ হচ্ছে দলের নারী নেত্রীদের মধ্যে। 

বিএনপির রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তারকারী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের মতে, কেবল মাত্র বাক পটুতার কারণেই রুমিনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। রাজনীতির মাঠে সক্রিয় থাকার বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া হয়নি। 

তার মতে, রুমিন ফারহানা তার নিজ নির্বাচনী আসনের (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২) মানুষের কাছেও তেমন পরিচিতি নন। সম্প্রতি কিছু টেলিভিশন টকশো আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জ্বালাময়ী বক্তব্য দিয়ে পরিচিতি পাওয়া একজন নেত্রী তিনি। 

রাজনীতির মাঠে সক্রিয়দের বাদ দিয়ে এধরণের নেত্রীদের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসালে অন্যরাও রাজপথ বাদ দিয়ে টকশো আর সামাজিক মাধ্যম কেন্দ্রীক হয়ে পড়বে। 

তিনি মনে করেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজ কারাগারে বন্দি। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দেশে আসতে পারছেন না। এই মুহুর্তে গণতন্ত্রের মাকে মুক্ত করা, সব ষড়যন্ত্র ভেঙে তারেক রহমানকে দেশে আসার পরিবেশ সৃষ্টি করা ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে রাজপথে লড়াই-সংগ্রামের বিকল্প নেই। 

Ads
Ads