সৌদিতে তেল সংস্থার ওপর হামলায় উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ

  • ১৯-মে-২০১৯ ১১:০৭ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

সৌদি আরবের পূর্ব প্রদেশের তেল পাম্পিং স্টেশনগুলোতে গোপন ড্রোন হামলায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ।

রোববার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, এ ধরনের অপ্রচলিত কাজগুলো এই অঞ্চলের সামগ্রিক নিরাপত্তা পরিস্থিতির ওপর প্রতিক‚ল প্রভাব ফেলবে।

বাংলাদেশ এ ধরনের একতরফা কাজ বাদ দিয়ে এ অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষণাবেক্ষণে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য বাংলাদেশ যে কোনো যৌথ প্রচেষ্টাকে সমর্থন করে বলেও বিবৃতিতে বলা হয়।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে সশস্ত্র ড্রোন সৌদি আরবের দুটি তেলের পাম্পে হামলা চালায়। হামলার লক্ষ ছিল সৌদির ইস্ট-ওয়েস্ট পাইপলাইনের দুটি পাম্পিং স্টেশন। এই স্টেশন থেকে তেল পূর্ব উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়। হামলায় ৮ নম্বর স্টেশনে আগুন ধরে যায়।

পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে হামলার ঘটনা নিশ্চিত করেছে সৌদি আরমাকো কোম্পানি। তারা জানায়, আট নম্বর পাম্প স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তারা সাড়া দেয়। সশস্ত্র ড্রোনের মাধ্যমে এই নাশকতা করা হয়। এতে ৮ ও ৯ নম্বর স্টেশনকে লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়।

আরমাকো আরও জানায়, পূর্ব সতর্কতা হিসেবে কোম্পানিটি পাইপলাইনটি বন্ধ করে দেয়। এতে আট নম্বর পাইপলাইনে সামান্য ক্ষতি হয়।

সৌদি আরবের পূর্ব প্রদেশের তেল পাম্পিং স্টেশনগুলোতে গোপন ড্রোন হামলায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ।

রোববার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, এ ধরনের অপ্রচলিত কাজগুলো এই অঞ্চলের সামগ্রিক নিরাপত্তা পরিস্থিতির ওপর প্রতিক‚ল প্রভাব ফেলবে।

বাংলাদেশ এ ধরনের একতরফা কাজ বাদ দিয়ে এ অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষণাবেক্ষণে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য বাংলাদেশ যে কোনো যৌথ প্রচেষ্টাকে সমর্থন করে বলেও বিবৃতিতে বলা হয়।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে সশস্ত্র ড্রোন সৌদি আরবের দুটি তেলের পাম্পে হামলা চালায়। হামলার লক্ষ ছিল সৌদির ইস্ট-ওয়েস্ট পাইপলাইনের দুটি পাম্পিং স্টেশন। এই স্টেশন থেকে তেল পূর্ব উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়। হামলায় ৮ নম্বর স্টেশনে আগুন ধরে যায়।

পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে হামলার ঘটনা নিশ্চিত করেছে সৌদি আরমাকো কোম্পানি। তারা জানায়, আট নম্বর পাম্প স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তারা সাড়া দেয়। সশস্ত্র ড্রোনের মাধ্যমে এই নাশকতা করা হয়। এতে ৮ ও ৯ নম্বর স্টেশনকে লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়।

আরমাকো আরও জানায়, পূর্ব সতর্কতা হিসেবে কোম্পানিটি পাইপলাইনটি বন্ধ করে দেয়। এতে আট নম্বর পাইপলাইনে সামান্য ক্ষতি হয়।

Ads
Ads