রাশিয়ায় মাঝ আকাশে বিমানে ভয়াবহ আগুন, নিহত ৪১

  • ৬-মে-২০১৯ ১২:৫৯ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

রাশিয়ায় রোববার এক ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় দুই শিশু ও এক বিমানকর্মীসহ কমপক্ষে ৪১ আরোহী প্রাণ হারিয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ছয়জন।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানায়, উড্ডয়নের পরপরই সমস্যা দেখা দেয়ায় মস্কোর শেরেমেতেভো বিমানবন্দরে জরুরি শেরেমেতেভো বিমানবন্দরে দণ্ডায়মান বিমানটি থেকে দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন।

রাশিয়ান বার্তা সংস্থা ইন্টার ফ্যাক্স জানায়, রুশ বিমান সুপার জেট-১০০ শেরেমেতেভো বিমানবন্দর থেকে ৭৩ জন যাত্রী নিয়ে সে দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় মারমানস্ক শহরের দিকে রওয়ানা হয়েছিলো। কিন্তু উড্ডয়নের পরপরই এটি দুর্ঘটনায় পড়ে।

ইন্টার ফ্যাক্স বলছে, উড্ডয়নের পরপরই ক্রুরা বিপদ সংকেত প্রেরণ করেন। এরপরই সেটি জরুরি অবতরণের চেষ্টা চালায়। তবে জরুরি অবতরণের ক্ষেত্রেও প্রথম দফায় সফল হয়নি বিমানটি। পরে বিমানবন্দরে নামার আগেই হঠাৎ বিমানের একাংশ বিস্ফোরণ হয়ে এতে আগুন ধরে যায়। এ অবস্থায় বিমানটি অবতরণ করলে জলন্ত বিমান থেকে যাত্রীরা দৌড়াদৌড়ি করে নামতে থাকেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বেশ কিছু ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে আরোহীরা ইমারজেন্সি এক্সিট রুট দিয়ে বের হয়ে অগ্নিদগ্ধ বিমানটি থেকে দৌড়ে সরে যাচ্ছেন। যদিও প্রত্যক্ষদর্শী একজন বলছেন প্রাণে রক্ষা পাওয়াটা একটা ‘আশ্চর্য’ঘটনা।

বিমান ট্রেকিং ওয়েবসাইট ফ্লাইটরাডার২৪ বলছে, উড্ডয়নের মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যেই জরুরি অবতরণ করে ওই বিমানটি। কিন্তু এতো বড় আগুন কীভাবে লাগলো বা কেনো বিমানটি জরুরি অবতরণ করতে চেয়েছিলো সেটি এখনো জানা যায়নি। এ দুর্ঘটনার কারণ জানতে ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে।

এ দুর্ঘটনা সম্পর্কে রুশ তদন্ত কমিটির মুখপাত্র বলেছেন, বিমানের ৭৮ জন আরোহীর মধ্যে কেবল ৩৭ জন বেঁচে আছেন। বাকি ৪১ জনই মারা গেছেন। নিহতদের মধ্যে দু জন শিশু ও একজন ফ্লাইট এটেনডেন্টও রয়েছেন।

আর রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রধান জানিয়েছেন, এ দুর্ঘটনায় আহত ছয়জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর।

সূত্র: বিবিসি/ রয়টার্স

Ads
Ads