‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’ যা দেখে তরুণীর নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট, অতপর...

  • ২৮-Apr-২০১৯ ০২:৫৮ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বিশ্বজুড়ে 'অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম' নিয়ে চলছে হইচই। ছবির মুক্তির পর থেকে সিনেমা হলে টিকিট পেতে রীতিমতো নাজেহাল দর্শকরা। এক কথায় সব রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে হলিউডের এই ফ্র্যাঞ্চাইজির চতুর্থ ও শেষ ছবি।

বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাষ্ট্রসহ সারাবিশ্বের দর্শকরা হলিউডের এ ছবিটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন। ছবির দুই পরিচালক অ্যান্থনি রুশো ও জো রুশো আর অভিনয়শিল্পীরা প্রতিনিয়ত ভক্তদের মনে করিয়ে দিচ্ছেন, প্রেক্ষাগৃহ থেকে বেরিয়ে ছবির গল্পটা যেন বলে না বেড়ান তারা।

এদিকে মার্ভেল স্টুডিওসের ছবিটি দেখে দর্শকরা খুব আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ছেন। এর মধ্যে ২১ বছর বয়সী এক চীনা তরুণী ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’ দেখে এতই বিহ্বল হয়ে পড়েন যে, তার কান্না থামছিলই না। পরে সিনেমা হল থেকে সোজা হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে তাকে!

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই তরুণীর নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল। তার হাত-পা অসাড় হয়ে পড়েছিল। হাসপাতালে নেওয়ার পর তাকে তড়িঘড়ি অক্সিজেন দেওয়া হয়। পাশাপাশি কর্মীরা মার্ভেল কমিকসের এই ভক্তকে বিভিন্ন ইতিবাচক কথা বলে সান্ত্বনা দেন।

এদিকে মার্ভেলের আরেক ভক্ত ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’ দেখার ক্ষেত্রে প্রেমিকা কামিলা রোজকে কয়েকটি শর্ত জুড়ে দিয়েছেন প্রেমিক সাইরিল। তিনি প্রেমিকাকে সতর্ক করেছেন এই বলে, হলে গিয়ে পপকর্ন কেনার লাইনে দাঁড়িয়ে কিংবা টয়লেটে গিয়ে ছবিটি দেখার পরিপূর্ণ অভিজ্ঞতা নষ্ট করা যাবে না! টুইটারে কামিলা তার প্রেমিকের এসব শর্ত পোস্ট করেন।

গত ১০ বছরে মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের ২২টি ছবির গল্পের সমাপ্তি টানা হয়েছে এবারের কিস্তিতে। এর ব্যাপ্তি তিন ঘণ্টারও বেশি। গত বুধবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ মিলিয়ে এটি আয় করেছে ৩০ কোটি ৫০ লাখ মার্কিন ডলার।

 

/কে 

Ads
Ads