আত্মার আকুতি শুনেছে জনগণ

  • ২৯-Dec-২০১৮

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

টানা তৃতীয় নির্বাচনে জয়ের পথে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট। বিভিন্ন নির্বাচনী আসন থেকে যে ফলাফল আসছে, তাতে ক্ষমতাসীন জোটের প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা পাত্তাই পাননি। বেশিরভাগ আসনেই ভোটের ব্যবধান অস্বাভাবিক বেশি।

পাকিস্তান আমলে ১৯৭০ এবং স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালের প্রথম সংসদ নির্বাচনের পর অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে এই চিত্র কখনো দেখা যায়নি। ক্ষমতাসীন দল বলছে, এটি উন্নয়নের ফসল আর বিরোধী পক্ষের নেতিবাচক ও স্বাধীনতাবিরোধীদের নিয়ে রাজনীতি করার ফসল। অন্যদিকে বিএনপি বলছে, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। 

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৬০টি আসনে বেসরকারি ফলাফল পাওয়া যায়। এর মধ্যে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা পায় ১৫৪টি আসন। মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টি পায় সাতটি আসন। আর অন্যান্য দল পায় দুটি। আর বিএনপি পায় কেবল দুটি আসন।

গতকাল রোববার এফবিসিসিআই পরিচালক, দৈনিক ভোরের পাতা সম্পাদক ও প্রকাশক এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শিল্প বাণিজ্য ও ধর্ম বিষয়ক উপকমিটির সদস্য ড. কাজী এরতেজা হাসান সকাল ৮টার আগেই জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে লিখেছিলেন, চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল ৩১ ডিসেম্বর সব পত্রিকার হেডলাইন এটাই হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। ইনশাল্লাহ, আজকের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট কমপক্ষে ২২০টি আসনে জয় পাবে। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয়তু শেখ হাসিনা..। 

ড.কাজী এরতেজা হাসানের কথাই সত্যি হলো। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটই আবারো ক্ষমতায় আসছে। ফলে ড.কাজী এরতেজা হাসান যা বলেছিলেন তাই সত্যি প্রমাণ হলো। ফলে আমার আত্নার আকুতি শুনেছেন জনগণ।