আদর্শের কোন স্বীকৃতি নেই বিএনপিতে: ইনাম

  • ২৫-Dec-২০১৮

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

সদ্য বিএনপি ত্যাগ করে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া ইনাম আহমদ চৌধুরী কড়া সমালোচনা করে ছেড়ে আসা দলের নীতি নির্ধারকদের সম্পর্কে বলেন, বর্তমান বিএনপির নীতিনির্ধারকদের চিন্তা ভাবনা দেশপ্রেমের উদাহরণ নয়। বিএনপিতে আদর্শের কোন স্বীকৃতি নেই, মূল্যায়ন নেই।

শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) সিলেট-১ আসনের মহাজোট প্রার্থী ড. মোমেনের মতবিনিময় সভায় তিনি এই সমালোচনা করলেন। 

নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে পেশাজীবিদের সাথে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন ইনাম আহমদ চৌধুরী। এর আগে ড. একে আবদুল মোমেন ও সিলেট আওয়ামী লীগের নেতারা ফুল দিয়ে বরণ করে নেন তাঁকে।

ইনাম আহমদ তার বক্তব্যে বলেছেন, অনেকে প্রশ্ন করেন আমি আওয়ামী লীগে কেন আসলাম? এটা আসলে ব্যক্তিগত কোন লাভ লোকসানের জন্য না। আমি দীর্ঘদিন বিএনপির সাথে ছিলাম। আমার মনোনয়ন দেয়া হয়নি এটা কোন বড় ব্যাপার নয়, কিন্তু কেন দেয়া হয় নি। বর্তমান বিএনপির নীতিনির্ধারকদের চিন্তা ভাবনা দেশপ্রেমের উদাহরণ নয়।

তিনি আরো বলেন, আমি আওয়ামী লীগের প্রতি বিশ্বাস এবং আস্থা থেকেই এসেছি। বিএনপি প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, সেখানে আদর্শের মূল্যায়ন নেই। চর্চা নেই। অনেক চিন্তা করে এসেছি। এ সিদ্ধান্ত ভুল নয়।

ইনাম আহমদ আরো বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো ভবিষ্যৎ উন্নয়ন নিশ্চিত করা ও তার ধারাবাহিকতা বজায় রাখা। বাংলাদেশে যে অবস্থানে আছে তার যাত্রা বা অবস্থান ধরে রাখতে পারে একমাত্র আওয়ামী লীগ।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেক হাসিনার প্রশংসা করে বলেন, শেখ হাসিনা আমাকে যেভাবে বরণ করলেন তাতে মনে হলো যে এটাই আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সিদ্ধান্ত। তিনি সারা দেশের নেত্রী হলেও সিলেটকে তিনি আলাদাভাবে প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। আমি লক্ষ্য করেছি সিলেটবাসীকে নিয়ে তাঁর গভীর চিন্তা রয়েছে।

ইনাম আহমদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেভাবে সিলেটবাসীকে ভালোবাসেন, সিলেটবাসীরও দায়িত্ব তাঁর ভালোবাসার প্রতিদান দেয়া। আজ আমরা যে গণতন্ত্রের পথে এগিয়ে যাচ্ছি তাতে সহযোগিতার ভূমিকা রাখা সিলেটবাসীর জন্য প্রয়োজন। সবাই একই পথের সহযাত্রী হয়ে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে দেশকে প্রগতির পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। এসময় তিনি নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে ড. একে মোমনেকে বিজয়ী করতে সিলেটবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

মত বিনিময় সভায় সিলেট-১ আসনের মহাজোট প্রার্থী ড. একে আবদুল মোমেন পারিবারিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন, ইনাম আহমদের সাথে আমাদের সম্পর্ক অনেক পুরনো। তারই ধারাবাহিকতায় আমার বাসায় সৌজন্য সাক্ষাতে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু বিএনপির কিছু সংকীর্ণমনা রাজনীতিবিদ এটাকে নিয়ে বিশ্রী সমালোচনায় লিপ্ত হন।

তিনি ইনাম আহমদের প্রশংসা করে বলেন, বিএনপির রাজনীতির সাথে দীর্ঘদিন যুক্ত থাকলেও তিনি সে আদর্শ ধারণ করেন না। বরং তিনি সবসময় বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা করেন।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আহমদ আল কবির, সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, যুগ্ম সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলাওর, বিজিত চৌধুরী, নাসির উদ্দিন খান, সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, এডভোকেট মাহফুজুর রহমান, সৈয়দ এপতার হোসেন পিয়ার, ডা. আরমান আহমদ শিপলু, তপন মিত্র, জুবের খান, আব্দুর রহমান জামিল, এডভোকেট রনজিত সরকার, নাজমুল ইসলাম এহিয়া, নুরুল ইসলাম পুতুল, জাবেদ সিরাজ, জাতীয় শ্রমিকলীগ সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি এম শাহরিয়ার কবির সেলিম, মহানগর কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুর রকিব বাবলু, সিলেট মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক আলম খান মুক্তি, যুগ্ম আহ্বায়ক মুশফিক জায়গীরদার প্রমুখ।