সকাল ১০ টায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত ও তরজমা এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। শহীদ বুদ্ধিজীবি, শিক্ষক-শিক্ষার্থী যারা ইন্তেকাল করেছেন তাদের জন্য দোয়ার আয়োজন করা হয়। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু। নাচ গান, নৃত্য, কবিতা আর স্মৃতি চারণ পুরো অনুষ্ঠানটিকে করে প্রাণোজ্জ্বল।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা-১৬ আসনের এমপি আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা, বিশেষ অতিথি ছিলেন বর্তমানে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আযহারুল ইসলাম মোল্লা (বিপ্লব মোল্লা) ও স্কুলে প্রাক্তন-বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষিকা।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব ফকির মহিউদ্দিন আহমেদ। প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির আলোচনা সভা এবং শিক্ষকমন্ডলীদেরকে ক্রেস প্রদান করা হয়। আলোচনা পর্ব শেষে পুনরায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলতে থাকে।

 

 

 

 

" /> ভোরের পাতা

৪০ বছরের উদযাপনের মিলনমেলায় এম.ডি.সি মডেল ইনষ্টিটিউট

  • ১-Dec-২০১৮

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ঢাকার মিরপুরের পল্লবীতে ১৯৭৮ সালে প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এম.ডি.সি মডেল ইনষ্টিটিউট দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে অত্যন্ত গর্ব ও সুনামের সাথে বিদ্যালয়টি থেকে ৩৮টি ব্যাচ এসএসসি পাস করে দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত আছেন।

শনিবার (০১ ডিসেম্বর) এম.ডি.সি মডেল ইনষ্টিটিউটের ৪০ বছর উদযাপন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৮১-২০১৮ পযর্ন্ত ৩৮ ব্যাচ নিয়ে ফিরে দেখা সেই এম.ডি.সি মডেল ইনস্টিটিউট (প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ) এই বণাঠ্য অনুষ্ঠানের ছিল সকাল হতে রাত অবধি।

সকাল ১০ টায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত ও তরজমা এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। শহীদ বুদ্ধিজীবি, শিক্ষক-শিক্ষার্থী যারা ইন্তেকাল করেছেন তাদের জন্য দোয়ার আয়োজন করা হয়। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু। নাচ গান, নৃত্য, কবিতা আর স্মৃতি চারণ পুরো অনুষ্ঠানটিকে করে প্রাণোজ্জ্বল।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা-১৬ আসনের এমপি আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা, বিশেষ অতিথি ছিলেন বর্তমানে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আযহারুল ইসলাম মোল্লা (বিপ্লব মোল্লা) ও স্কুলে প্রাক্তন-বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষিকা।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব ফকির মহিউদ্দিন আহমেদ। প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির আলোচনা সভা এবং শিক্ষকমন্ডলীদেরকে ক্রেস প্রদান করা হয়। আলোচনা পর্ব শেষে পুনরায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলতে থাকে।