প্লিজ তোমরা শান্ত হও, ক্লাসে যাও : শিক্ষার্থীদের কাদের

  • ১১-জানুয়ারী-২০১৯

রাজধানীতে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় রাজপথে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে সরকার কঠোর অবস্থানে আছে। জড়িত দোষীদের বিচার হবে, শাস্তিও হবে। কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের কাছে আমি অনুরোধ করব, প্লিজ তোমরা শান্ত হও, ক্লাসে যাও।

মঙ্গলবার সকালে (৩১ জুলাই) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তোমরা লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করো। এটা সড়কের বিষয় নয়। সরকার চুপ করে বসে নেই। ঘটনা ঘটার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। এখানে সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর।

বরিশাল ও রাজশাহী সিটি করেপারেশন নির্বাচনের বিষয়ে তিনি বলেন, দুই সিটি নির্বাচনে বিজয় এটাই প্রমাণ করে জনগণ সরকারের উন্নয়নের পক্ষে। জনগণ হাওয়া ভবনে মতো বিকল্প ভবন দেখতো চায় না। সন্ত্রাস-দুর্নীতির জন্য রাস্তা হারিয়ে ফেলেছে দলটি (বিএনপি)।

সিলেটে নৌকার প্রার্থীর পরাজয়ের কারণ হিসেবে সাংগঠনিক দুর্বলতাকে দায়ী করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সিলেটে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে ফলাফল এরকম হতো না। সিলেট ও কুমিল্লায় আমাদের পরাজয়ে সাংগঠনিক দুর্বলতা কাজ করেছে। সিলেটে হারলেও ভোটে তেমন ব্যবধান নেই।’

সিলেটে বিএনপির বিজয়ী প্রার্থীকে অভিনন্দন জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ভোট চলাকালীন নির্বাচন নিয়ে নানান নাটকীয়তা করেছিলো বিএনপির প্রার্থী। ফলাফলও প্রত্যাখান করেছিলো তারা। রাতে ফলাফল শোনার পর পাল্টিয়ে যায় এই চিত্র। বিজয়ী চিহ্ন দেখান তিনি। বিএনপি কি সিলেটে পুনরায় নির্বাচনের দাবি করবেন?’

নির্বাচন নিয়ে কয়েক দিন বিএনপি তামাশার নাটক মঞ্চস্থ করেছে উল্লেখ করে কাদের বলেন, ‘বরিশালে বিএনপির প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে যাবেন এটা দক্ষিণ অঞ্চলের পত্র-পত্রিকাগুলো আগেই লিখেছিলেন। নিশ্চিত পরাজয় জেনেই মজিবর রহমান সারোয়ার সরে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপির রাজশাহীর প্রার্থীর পাশে দলের কোনো নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি। তিনি পরাজয়ের বিরহে কাতর ছিলেন। নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার নীলনকশা করেছিলো বিএনপি। জনগণ তাদের নীল নকশা ভুণ্ডল করে দিয়েছে।’

নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ায় তিনি নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একেএম এনামুল হক শামীম, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল প্রমুখ।