সেই পর্ন তারকার পাওনা শোধ করলো ট্রাম্প!

:: সীমানা পেরিয়ে ডেস্ক ::

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, পর্ন অভিনেত্রী স্টর্মি ড্যানিয়েলসের মুখ বন্ধ রাখতে তার আইনজীবীর পাওনা অর্থ তিনি পরিশোধ করেছেন এবং তা বৈধভাবেই করেছেন।

ওই পর্ন তারকা যেন ট্রাম্পের সঙ্গে তার যৌন সম্পর্কের কথা গোপন রাখেন, সেজন্য ২০১৬ সালে ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল কোয়েন ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন বলে গত জানুয়ারিতে পত্রিকায় খবর বের হয়।

অবশ্য পত্রিকার খবরের সত্যতা ওই আইনজীবী স্বীকার করলেও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দাবি করেন, এ রকম অর্থ দেয়ার কথা তিনি জানেনই না।

এর আগে মার্কিন সংবাদমাধ্যমে নিউইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি জুলিয়ানি প্রকাশ করে দেন, ওই অভিনেত্রীর মুখ বন্ধ রাখতে ট্রাম্পের আইনজীবী তাকে যে টাকা দিয়েছিলেন, তা ট্রাম্প আবার তাকে শোধ করে দিয়েছেন।

এরপরই কিছুদিন ধরে প্রশ্ন উঠছিল যে, স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে আইনজীবী মাইকেল কোয়েনের দেয়া অর্থ ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের তহবিল থেকে গিয়েছিল কিনা? সেটি হলে তা হতো আমেরিকান ফেডারেল আইনের স্পষ্ট লঙ্ঘন।

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার ফক্স নিউজ টিভিতে প্রেসিডেন্টেরই আইনজীবী দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য এবং নিউইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি জুলিয়ানি একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘ওই অর্থ প্রেসিডেন্টের নির্বাচনী প্রচারণা তহবিলের টাকা ছিল না। ফলে এ ক্ষেত্রে প্রচারণা তহবিল তচ্ছরুপের কোনো ঘটনা ঘটেনি।’

জানুয়ারি মাসে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল পত্রিকায় খবর বের হয়, ২০০৬ সাল পর্যন্ত ওই পর্ন অভিনেত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক রেখেছিলেন ট্রাম্প।

২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগে তার মুখ বন্ধ করতে আইনজীবী মাইকেল কোয়েনের হাত দিয়ে গোপনে তাকে ১৩০,০০০ ডলার দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

পরে সাংবাদিকের জেরার মুখে জুলিয়ানি বলেন, অর্থটা দিয়েছিল একটি ল’ ফার্ম। প্রেসিডেন্ট পরে সেই পাওনা শোধ করেন। প্রতি কিস্তিতে ৩৫ হাজার ডলার করে দেন ট্রাম্প।

এ সময় রুডি জুলিয়ানি জানান, তিনি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলেই গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছেন।

স্টর্মি ড্যানিয়েলসের আইনজীবী মাইকেল এভেনাত্তি বলেছেন, জুলিয়ানির বিবৃতি আমেরিকান জনগণকে ক্ষুব্ধ করবে।

বার্তা সংস্থা এপিকে তিনি বলেন, ‘ট্রাম্প একটা গুরুতর অপরাধে অংশ নিয়েছেন বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। তার আচরণ, মিথ্যা এবং এই প্রতারণার পরিণাম গুরুতর হবে।’

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজেও এ সাক্ষাৎকার প্রচারের পরে এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘কোয়েন যে অর্থ পেয়েছেন তা প্রচারাভিযানের টাকা ছিল না এবং তা দিয়ে দু’ব্যক্তির মধ্যে একটি তথ্য গোপন রাখার চুক্তি হয়েছিল।’

তিনি লেখেন, ‘বিখ্যাত এবং ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে এ রকম ঘটনা প্রায়ই হয়ে থাকে।’

ট্রাম্প টুইটে আরও বলেন, ‘মিজ ক্লিফোর্ড (স্টর্মি ড্যানিয়েলসের আসল নাম) যাতে মিথ্যা বলে টাকা আদায় করতে না পারেন, সেজন্যই এ চুক্তি হয়েছিল।’

খবর: বিবিসির

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here