রাজীবের দুই ভাইয়ের সম্পূর্ণ দায়িত্ব নিলেন বাউফলের রাসেল

::ভোরের পাতা অনলাইন::

রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁও মোড়ে দুই বাসের রেষারেষির মধ্যে পড়ে হাত হারিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন। তার উপর নির্ভরশীল ছোট দুই ভাইয়ের দায়িত্ব নিয়েছেন পটুয়াখালীর বাউফলের জোবায়দুল হক রাসেল।

জোবায়দুল হক রাসেল হাইকোর্টের বিচারপতি জহিরুল হকের সন্তান ও সাবেক ছাত্রনেতা , ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এবং পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।

বুধবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিতকরে তিনি বলেন,আমার বাবা বিচারপতি জহিরুল হক ও আমার ইচ্ছায় ‘আজ থেকে আমি রাজীবের দুই ভাইয়ের সম্পূর্ণ দায়িত্ব নিয়েছি। তারা যেখানে থাকে, সেখানেই থাকবে। আমি তাদেরকে প্রতি মাসে ১০ হাজার করে টাকা দেব। এছাড়াও তাদের কোনো সমস্যা হলে, সে সমস্যা সমাধান করার চেষ্টাও আমি করব।’

রাসেল আরো বলেন, অনেকেই বলাবলি করছে রাজীবের দুই ভাইয়ের দায়িত্ব অনেকেই নিয়েছে। অনেকেই নাকি তাদেরকে টাকা দিয়ে সাহায্য-সহযোগিতা করছে। এটা মিথ্যা কথা। আমি নিজে খোঁজ নিয়ে দেখেছি কেউ তাদের কোনো টাকাও দেয়নি, সহযোগিতা করার আশ্বাসও দেয়নি।

তিনি বলেন, রাজীব বাউফলের ছেলে এটা আমি আগে জানতাম না। আগে জানা থাকলে তাদের দায়িত্ব আগে থেকেই নিতাম।

জানতে চাইলে রাজীবের মামা জাহিদ হোসেন বলেন, ‘আমি জানি না যে তিনি (রাসেল) আমার দুই ভাগিনার দায়িত্ব নিয়েছেন। আমাদের এখানে সকাল থেকে বিদ্যুৎ নেই। নেটওয়ার্কও পাওয়া যাচ্ছে না। তবে কিছুক্ষণ আগে রাসেল সাহেব আমাকে ফোন দিয়েছিলেন। নেটওয়ার্ক না থাকায় কেটে গেছে। হয়তো তিনি এই ব্যাপারটি বলার জন্য ফোন দিয়েছিলেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘তিনি (রাসেল) যেহেতু আপনাকে বলেছেন এই কথা, সেহেতু আপনি উনার কথা লিখে দিতে পারেন। উনাকে এলাকার সকলেই মান্য করে।’

গত ৩ এপ্রিল দুই বাসের রেষারেষির মধ্যে পড়ে ঢাকার সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের (বাণিজ্য) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেনের (২১) হাত কাটা পড়ে। ১৩ দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার দিবাগত রাতে তিনি মারা যান। মা-বাবা মারা যাওয়ায় রাজীবের ছোট দুই ভাই তার উপরই নির্ভরশীল ছিল।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here