বিএনপিকে মাইনাস করে জামায়াতের নতুন জোট!

::ভোরের পাতা ডেস্ক::

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির পক্ষ থেকে জামায়াতের প্রার্থীকে মনোনয়ন না দেওয়ার কারণে বিএনপিকে বাদ দিয়ে ১৯ দল গঠন করতে যাচ্ছে জামায়াতে ইসলামী। এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান।

এ প্রসঙ্গে জামায়াতের কর্মী আনিছুর রহমান বলেন, আমরা চেয়েছিলাম ২০ দলের পক্ষ থেকে এবারের সিলেট নির্বাচনে জামায়াত প্রার্থী এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে মনোনয়ন দেয়া হোক। কিন্তু ব্যাপারটি মেনে নিতে চাইছেন না বিএনপি নেতা তারেক রহমান। ইতোমধ্যে মাহবুব জুবায়েরকে মেয়র পদ থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানকে ফোন করে অনুরোধ করেন তারেক রহমান। যা নিতান্তই বেমানান। এ থেকেই প্রমাণিত হয় জামায়াতকে শুধু নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহার করছে বিএনপি। বিপদে পড়লে বিএনপি আমাদের খোঁজ নেয়। প্রয়োজনে পা ধরে। কিন্তু এর চেয়ে বেশি আমাদের কোনো সহায়তাই দেওয়া হয় না। যার কারণে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে ২০১৯ সালের নির্বাচনে বিএনপিকে বাদ দিয়ে ১৯ দল নিয়ে জামায়াতের নেতৃত্বে নতুন একটি রাজনৈতিক জোট গঠন করা হবে।

জামায়াত কর্মী আনিছুর রহমানের কথার রেশ ধরে বিএনপির নয়াপল্টন থানার সভাপতি বলেন, সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির জয় লাভ করা অত্যন্ত জরুরি। সে ক্ষেত্রে জামায়াতের মতো ছোট দলকে মনোনয়ন দিলে গাজীপুর ও খুলনার মতো সিলেট নির্বাচনেও শোচনীয়ভাবে হেরে যাবে বিএনপি। তাই দলকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থেই জামায়াতকে ছাড় দেয়া হচ্ছে না। এটা দোষের কিছু নয়। তবে জামায়াত যদি মনে করে বিএনপিকে বাদ দিয়ে তারা নতুন করে ১৯ দল গঠন করবে তবে সেটি হবে জামায়াতের জন্য বোকামী।

এই বিষয়ে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বলেন, ২০১৩ সালে তারেক রহমান কর্তৃক সিলেটের আসনটি জামায়াতকে দেয়া হবে মর্মে কথা দিয়েছিলেন। কিন্তু তারেক রহমান কথা না রেখে নিজেকে মিথ্যাবাদী প্রমাণ করলেন। গত ২ জুলাই তারেক রহমানের সঙ্গে আমার কথা হয়। তখন তিনি আমাকে সিলেট সিটি করপোরেশনে জামায়াতের প্রার্থী প্রত্যাহার করার অনুরোধ করলেও আমি তার অনুরোধ সরাসরি প্রত্যাহার করি। বিএনপির তরফ থেকে যতো বাধাই আসুক না কেন, এবারের সিলেট নির্বাচনে আমরা অবশ্যই অংশ গ্রহণ করবো।

একদিকে বিএনপিতে তারেক-ফখরুল দ্বন্দ অপরদিকে জামায়াতও ছেড়ে যেতে চাইছে বিএনপিকে। এ দিকে গুঞ্জন উঠেছে জামায়াতে ইসলামী সিলেটের শরিক দলগুলোকে হাত করে ইতিমধ্যে ১৯টি শরিক দলের সাথে সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ব্যাপারে বৈঠক করেছে। ফলে উক্ত নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর ভরাডুবি হওয়ায় আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এমন চলতে থাকলে আগামীতে বিএনপির অস্তিত্ব টিকে থাকবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here