বাংলাদেশকে হোম ভেন্যু বানাবে পাকিস্তান!

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের ওপর জঙ্গী হামলার পর থেকে পাকিস্তানের হোম ভেন্যু আরব আমিরাত। দেশটির তিনটি আন্তর্জাতিক মানের ভেন্যু, আবু ধাবি, দুবাই এবং শারজায় আয়োজন করা হয় পাকিস্তানের হোম ম্যাচগুলো। সে সময় থেকেই আরব আমিরাত ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে দারুণ একটি সম্পর্ক পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি)।

কিন্তু সেই ভালো সম্পর্ক এবার ভেঙে যাওয়ার পথে। শেষ শীতকালীন মৌসুমে দুবাইয়ের মাঠের ওপর দিয়ে যে ধকল গেছে তাতে হয়তবা পাকিস্তানকে বদলে ফেলতেও হতে পারে তাদের হোম ভেন্যু। আর আরব আমিরাত ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) চাচ্ছে, আগামী মৌসুমের পুরোটা জুড়ে তাদের ভেন্যুগুলোতে বেশ কিছু টি-টোয়েন্টি লিগের আয়োজন করতে। ইসিবি কর্তৃপক্ষ আগে যে ভাড়া নিতো, তার চেয়েও এখন বেশি দাবি করছে তারা। তবে, অর্থ দিয়ে মাঠ ভাড়া পাওয়া গেলেও হতো, ইতোমধ্যেই বেশ কয়েকটি ফ্রাঞ্চাইজি লিগের জন্য দুবাই এবং শারজাহ’র বরাদ্ধও নিশ্চিত করে ফেলেছে ইসিবি।আর সেক্ষেত্রে সরফরাজ আহমেদদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশও!

নতুন ভেন্যুর ক্ষেত্রে পিসিবি বেশ আগ্রহী বাংলাদেশকে নিয়ে। ক্রিকেটের ওয়েবসাইটটি লিখেছে, পিসিবি যে বিকল্পগুলো ভাবছে তার মধ্যে ভালোভাবে আছে বাংলাদেশ। এমনিতেই বাংলাদেশে পাকিস্তানি ক্রিকেট দলের জনপ্রিয়তা ব্যাপক, তাঁর সাথে বেশ সজ্জিত ও দারুণ গোছানো স্টেডিয়াম তো আছেই। ফলে ভেন্যু হিসেবে বাংলাদেশকে পছন্দ হওয়ারই কথা।

অবশ্য দুই বোর্ডের মধ্যে যেই সম্পর্ক এখন চলছে তাতে বাংলাদেশের অবশ্য পাকিস্তানের ভেন্যু হওয়ার সম্ভাবনা পড়তির দিকেই বলা চলে।  গেল বছর পাকিস্তানের আমন্ত্রণে সাড়া না দিয়ে পাকিস্তান সফরে আর যায়নি বাংলাদেশ। এর সাথে বাংলাদেশের মাঠগুলো এমনিতেই ব্যস্ত নিজস্ব ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়ে।

বাংলাদেশ ছাড়াও নতুন ভেন্যুর ক্ষেত্রে আরও কয়েকটি দেশ আছে পিসিবির পছন্দের তালিকায়। মালয়শিয়া, শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ডের সঙ্গে কাতারকেও ঘরের মাঠ বানানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেছে পাকিস্তান।

সব মিলিয়ে পাকিস্তান বেশ ঝামেলার মধ্যেই আছে। কোথায় আয়োজন করবে তারা নিজেদের হোম সিরিজগুলো? এদিকে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, পিসিবি এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক কোনো প্রস্তাব তাদের দেয়নি।

 

অনলাইন/কে 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here