বহু নারীসঙ্গে আসক্ত ছিলেন শুভশ্রীর স্বামী রাজ

::বিনোদন ডেস্ক::

প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের সাত বছর পর শুভশ্রী গাঙ্গুলিকে বিয়ে করেন রাজ চক্রবর্তী। টালিগঞ্জের সুপার হিট নায়িকার সঙ্গে শুক্রবার সাত পাকে বাঁধা পড়ে জমকালো আয়োজনে বিয়ের অনুষ্ঠান করেন নির্মাতা রাজ।

দাম্পত্য জীবনে যখন বইছে সুখের হাওয়া, তখন সাবেক স্বামীকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজের প্রথম স্ত্রী শতাব্দী মিত্র। তিনি জানান, বিবাহিত অবস্থায় একাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিল রাজের!

২০০০ সালে একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠানে পরিচয় হয়েছিল শতাব্দী ও রাজের। পরিচয় থেকে বন্ধুত্ব। বন্ধুত্ব থেকে প্রেম। ২০০৬ সালে বিয়ে হয় রাজ-শতাব্দীর। রাজের ক্যারিয়ার প্রতিষ্ঠিত না হওয়ায় বিয়ে নিয়ে প্রাথমিকভাবে রাজি ছিলেন না শতাব্দীর বাবা-মা। পরে অবশ্য রাজকে স্বীকার করেন নেন তারা। তবে সম্পর্ক তিক্ততার পর্যায়ে চলে গেলে আলাদা হন রাজ-শতাব্দী।

শতাব্দী দাবি করেন, তার সঙ্গে বিবাহিত সম্পর্কে থাকলেও শুভশ্রীর সঙ্গে প্রেম শুরু করেছিলেন রাজ। সেটা নিয়ে বাড়িতে অশান্তিও হয়। এমনকি, শুভশ্রীর বাড়িতে ফোন করে এই সম্পর্ক থেকে সরে আসার অনুরোধ করেছিলেন শতাব্দী। শুভশ্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে নাকি বলা হয়, বয়স কম, তাই ভুল করে ফেলেছেন শুভশ্রী। তিনি এই সম্পর্ক থেকে সরে আসবেন। এরই মধ্যে গুজব রটে শুভশ্রী নাকি প্রেম করছেন নায়ক দেবের সঙ্গে। তবুও আশ্বস্ত হতে পারেননি শতাব্দী।

শতাব্দীর এক সাংবাদিক বান্ধবী বলছেন, ‘ততদিনে নায়িকা পায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল রাজের। দিনের পর দিন একসঙ্গে থাকতে শুরু করেছিলেন তারা। শতাব্দীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করতেন রাজ। তারপর বলিউডের এক বাঙালি গায়িকা এবং আরও কয়েকজন নারীর সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল রাজের।’

অবশেষে বিরক্ত হয়েই নাকি আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন শতাব্দী। ২০১১ সালের শেষের দিকে বিবাহবিচ্ছেদ হয় তাদের। তবে এত কিছুর পরেও শতাব্দী রাজের ওপর রাগ নন। এরপরও এক বন্ধুর কাছে শতাব্দী জানিয়েছেন, অতীতের যাবতীয় তিক্ততার পরেও শুভশ্রীকে নিয়ে রাজ আনন্দে থাকুক, এমনটাই চান তিনি।

শতাব্দী বলেন, ‘রাজকে আমি এখনো ভালোবাসি। কখনোই চাইব না তার কোনো ক্ষতি হোক। শুভশ্রীর সঙ্গে সে নতুন জীবন শুরু করেছে। তাদের জীবন সুখে কাটুক। আমরা এখন অনেক পরিণত। দুজন পরিণত মানুষের মতোই অতীতটাকে সামলে নিতে চাই।’

শতাব্দীর সঙ্গে থাকাকালীন ক্যারিয়ারের প্রথম তিনটা সিনেমাই সুপার হিট হয়েছিল রাজের। তাদের পারিবারিক বন্ধুরাও স্বীকার করে বলেন, ‘শতাব্দী ছিল রাজের লাকি চার্ম।’ রাজের দাম্পত্য জীবনের দ্বিতীয় অধ্যায়ে কি শুভশ্রী ফিরিয়ে আনতে পারবেন সেই ভাগ্য, সেটিই এখন দেখার পালা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here