পাসের হার কমার কারণ ব্যাখ্যা করলেন শিক্ষামন্ত্রী

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

২০১৮ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার কমলেও জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে। তবে কেন পাসের হার কমেছে, এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নকল প্রতিরোধে বিভিন্নমুখী উদ্যোগ নিয়েছিল সরকার। ২৩টি বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতিতে পরীক্ষা হয়েছে। এবং সব শিক্ষা বোর্ডে অভিন্ন মূল্যায়ন পদ্ধতিতে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হয়েছে। আমরা মনে করছি, এসব কারণে পাসের হার একটু কমেছে।

রোববার (০৬ মে) সচিবালয়ে পরীক্ষার ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আগে শিক্ষকরা খাতা মূল্যায়নের ক্ষেত্রে একটু ছাড় দিতেন। কিন্তু সারা দেশে অভিন্ন পদ্ধতিতে উত্তরপত্র মূল্যায়নের পর এটা বন্ধ হয়ে যায়। আমরা চাই, সারা দেশ থেকে মেধাবীরা বেরিয়ে আসুক।

তিনি বলেন, পাসের হার কমলেও শিক্ষার মান বেড়েছে। পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নে পরিবর্তন আসায় আগের মতো খাতা না দেখে নম্বর দেওয়া বন্ধ হয়েছে।

সার্বিক মূল্যায়নে সন্তোষ প্রকাশ করে নাহিদ বলেন, ছোটখাট ত্রুটি বিচ্যুতিগুলো পর্যালোচনা করে পরবর্তীতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এর আগে রোববার সকাল ১০টার দিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

উল্লেখ্য, এবার সারা দেশে পাসের হার ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ, যা গত বছরের চেয়ে ২ দশমিক ৫৮ শতাংশ কম। ২০১৭ সালে ১০ শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ছিল ৮০ দশমিক ৩৫ শতাংশ। তবে এবার গতবারের চেয়ে পাঁচ হাজার ৮৬৮ জন বেশি জিপিএ-৫ পেয়েছে। গত ১ ফেব্রুয়ারি এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়। ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয় গত ৮ মার্চ।

ভোরের পাতা/ই

1 মন্তব্য

  1. মন্তব্য:আমরা চাই কোন নিয়ম পরি বর্তন হলে সেটা ছোরের প্যথম হবে জাতে সবাই ভালো ভাবে প্যস্তুতি নিতে পারে মাজে এসে করলে তা সবার জন্য কস্টকর হয়

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here