জাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষকদের প্রতীকী সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত

:: জাবি প্রতিনিধি ::

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একাংশের সংগঠন “বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’র ডাকা সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির শেষ দিনে প্রতীকী সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপাচার্য অ্যাক্টবিরোধী, অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ড এবং সিনেট সভা ডাকছেন না এমন দাবি করে শনিবার সকাল ১১ টায় প্রশাসনিক ভবনের সামনের এ সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতীকী এ সিনেট অধিবেশনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ভূমিকায় দেখা যায় প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এসএম বদিয়ার রহমানকে। এছাড়া উপ-উপাচার্য ভূমিকায় এম শফিকুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ হিসেবে অধ্যাপক ম. নজিবুর রহমান এবং রেজিস্ট্রার হিসেবে মো. শাহিদুর রহমান পরাগ অংশগ্রহণ করেন।
নির্বাচিত সিনেটর হিসেবে হাজ্জাক বিন মাহফুজ উপাচার্যের দ্বিতীয় মেয়াদে নেওয়া দায়িত¦, সিনেটে তলবি সভা না ডাকা, উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন না দেয়া নিয়ে সমালোচনা করে নানা প্রশ্ন রাখেন। এসময় তিনি সিনেটে রেজিস্ট্রার গ্রাজুয়েট নির্বাচনে পক্ষপাতমূলক আচরণ, অ্যাক্টকে সমন্বিত না রেখে অবজ্ঞা ও অবমাননা করেছেন এমন অভিযোগ করেন।

প্রশ্নোত্তরে উপাচার্যের ভূমিকায় থাকা অধ্যাপক এসএম বদিয়ার রহমান বলেন, আমার দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হওয়ার পরিকল্পনা অনেক আাগে থেকে ছিলো। নতুন দল গঠন করেছি এবং সিনেট নির্বাচনে ভালো করার সর্বাত্মক চেষ্টা করেছি। কিন্তু তা হয়নি এজন্য, আমি ১১ (১)ধারার অস্পষ্টতাকে ব্যবহার করেছি। এসময় সিনেটে রেজিস্ট্রার গ্রাজুয়েট নির্বাচিত প্রতিনিধিসহ অন্যান্যরা প্রশ্ন করলে প্রতীকী উপাচার্য হাস্যরসাত্মকভাবে প্রশ্নের জবাব দিয়ে তার বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ স্বীকার করে নেন।

রেজিস্ট্রারড গ্রাজুয়েট হিসেবে নির্বাচিত সিনেট সদস্য মো. এবায়দুল্লাহ তালুকদার অবিলম্বে উপাচার্য প্যানেল, হল সংসদ ও জাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠান, শিক্ষকদের উপর হামলার তদন্তের জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন, নবনিযুক্ত প্রাধ্যক্ষদের নিয়োগ বাতিল করে সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রাধ্যক্ষ নিয়োগ, প্রাধ্যক্ষ ক্যাটাগরি থেকে নির্বাচিত সিন্ডিকেট সদস্যের প্রভোস্টশীপ সিন্ডিকেটের মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত রাখা, সিন্ডিকেট সভা আহ্বান করা, র‌্যাগিং-সেশন জ্যাম-মাদক-আবাসন সমস্যা মুক্ত ক্যাম্পাস গড়ার প্রস্তাব উত্থাপন করলে সর্বসম্মতভাবে প্রতীকী এ সিনেট অধিবেশনে তা পাশ হয়।

এর আগে ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ এর সভাপতি অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমেদ প্রতীকী সিনেট অধিবেশনের যৌক্তিকতা তুলে ধরে বলেন দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ লাভের পর থেকেই উপাচার্য অ্যাক্টবিরোধী ও অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ড করে চলছে। এসব কর্মকান্ডের প্রতিবাদ হিসাবে আজ এই প্রতীকী সিনেট অধিবেশন।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য কর্তৃক অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম দ্বিতীয় মেয়াদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসাবে পুন:নিয়োগের পর থেকেই উপাচার্য বিরোধী আন্দোলন করে আসছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ ব্যানারে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একটি অংশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here