গাসিকের নবনির্বাচিত মেয়রকে আমাদের প্রাণঢালা অভিনন্দন

:: ড. কাজী এরতেজা হাসান ::

প্রত্যাশিত জয়ই পেল দেশের সবচেয়ে বড় সিটি গাসিক নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। এতে চার লাখ ১০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম। পক্ষান্তরে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। তিনি ভোট পেয়েছেন এক লাখ ৯৭ হাজার ৬১১ ভোট। আর এই ফলাফলের মধ্যদিয়ে স্পষ্ট হলো গাসিকের ভোটাররা অত্যন্ত সচেতনভাবেই তাদের প্রতিনিধি বেছে নিয়েছেন। দেশের জনগণ আজ বুঝতে পেরেছে কেমন প্রার্থীকে নির্বাচিত করলে দেশ ও জনগণের উন্নতি হতে পারে।

তাছাড়া বর্তমানে ক্ষমতাসীন হিসেবে যেহেতু আওয়ামী লীগই রয়েছে কাজেই প্রত্যাশিতভাবেই এ কথা প্রযোজ্য যে, এরকম বড় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলটির প্রার্থীকে নির্বাচিত করলেই সে এলাকার উন্নয়ন ও অগ্রগতি ঘটবে। নির্বাচিত হয়েই নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, ‘সবাইকে নিয়েই একসঙ্গে কাজ করবেন।’ যিনি জনগণের দ্বারা নির্বাচিত জনগণের প্রতিনিধি, তিনি তো সবাইকে নিয়েই কাজ করবেন, এমনটিই প্রত্যাশিত। তবে আমরা অত্যন্ত পরিতাপের সঙ্গে লক্ষ করছি যে, এমন একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনকেও প্রতিদ্বন্দ্বী দল বিএনপি প্রশ্নবিদ্ধ করার অবকাশ করছে। আমরা মনে করি এমন আচরণ গণতন্ত্রের বিকাশের পথে অন্তরায় হয়ে থাকবে। তাদের কথায় স্পষ্ট যে, নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ‘সবাইকে নিয়ে কাজ করা’র ব্যাপারে তার আকাক্সক্ষার কথা জানালেও বিএনপি বা তাদের সমর্থক গোষ্ঠী এই ‘সবাইর’ মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হতে রাজি নয়। অর্থাৎ তারা নতুন মেয়রকে অসহযোগিতা করবে বলেই জানিয়ে দিলো। অথচ উন্নত গণতান্ত্রিক বিশে^ আমরা দেখি যে, কোনো দল পরাজিত হলেও সে দলের প্রার্থী তার পরাজয়ের কথা স্বীকার করে বিজয়ী প্রার্থীকে সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়ে থাকেন। তার মানে আমাদের দেশে সেই গণতান্ত্রিক চর্চা এখনো সুদূরপরাহত। অথচ বিএনপি প্রার্থী যেভাবে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হলো তাতে করে কোনো প্রশ্ন তোলারই সুযোগ থাকে না।

আর যাহোক, এত ব্যবধানের ভোটের মধ্যে কোনো ‘কিন্তু’ থাকার অবকাশ থাকে না। বরং এতে স্পষ্ট, ভোটাররা স্বতঃস্ফূর্তভাবেই ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীকে নির্বাচিত করেছে। এতএব, আমরা নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আমাদের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও প্রাণঢালা শুভেচ্ছা জানাই। আশা করি, গাজীপুর সিটিবাসী যে প্রত্যাশা নিয়ে তাকে নির্বাচিত করেছেন সে প্রত্যাশা তিনি অক্ষরে অক্ষরে মিটিয়ে দিতে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাবেন। তাহলেই যেমন দল হিসেবে আওয়ামী লীগের ভবিষ্যৎ আরো উজ্জ্বল হবে পাশাপাশি দেশও আরো এগিয়ে যেতে থাকবে। জনগণের দোয়াও থাকবে তার প্রতি। আমরা সেরকম নিবেদিতপ্রাণ মেয়রেরই প্রত্যাশায় রইলাম।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here