খালেদা জিয়ার কারা ও রোগমুক্তি কামনায় মেলবোর্ন বিএনপির দোয়া

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা এবং তার কারামুক্তির দাবিতে মেলবোর্ন বিএনপির উদ্যোগে স্থানীয় উইন্ডহ্যাম পার্ক কমিউনিটি সেন্টারে এক ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সেইসাথে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকো এবং নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়।

মেলবোর্ন বিএনপির সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ মনির সভাপতিত্বে এবং অস্ট্রেলিয়া ছাত্রদলের সভাপতি কায়াস মাহমুদ জনির পরিচালনায়
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়া বিএনপির সাবেক সভাপতি, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এবং বর্তমান কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনিরুল হক জর্জ।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়া বিএনপির সিনিয়র নেত্রী ডক্টর নার্গিস বানু এবং অস্ট্রেলিয়া বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল মতিন। অনুষ্ঠানে মেলবোর্ন বিএনপি এবং অস্ট্রেলিয়া ও মেলবোর্ন ছাত্রদলের বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল মোহাম্মদের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেলবোর্ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটম রহমান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা সকলই কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান এবং নেত্রীর সুস্থতায় দেশবাসীসহ সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন। সভাপতির বক্তব্যে রিয়াজ উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি রেখে সরকার দলীয় নেতা কর্মীরা আজকে আনন্দ উদযাপন করছেন। আমরা এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাই এবং আল্লাহর কাছে বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া করি।

তিনি আরো বলেন, প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকো এবং কারাগারে নিহত নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টুর অভাব আমরা কোনো ভাবেই পূরণ করতে পারবোনা। তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দেশবাসীর দোয়া প্রাথর্না করছি। অস্ট্রেলিয়া ছাত্রদল সভাপতি কায়াস মাহমুদ জনি তার বক্তব্যে বলেন, প্রতি বছর বেগম খালেদা জিয়া রমজানের প্রথম ইফতার এতিম শিশুদের নিয়ে পালন করেন। কিন্তু গতকাল নেত্রীর চেয়ারটি খালি রেখে বিএনপির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এতিমদের সাথে ইফতার পালন করেন। এই দৃশ্য দেখে লক্ষ কোটি বাংলার জনতা চোখের জ্বলে বুক ভাসিয়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারকে বলতে চাই, একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা যাচাই করুন, তাহলেই বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা সম্পর্কে আপনাদের ভুল ধারণা ভেঙে যাবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডক্টর নার্গিস বানু বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি রেখে বাংলাদেশে যদি কোনো জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে বাংলাদেশের মানুষ সেই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করবে। অস্ট্রেলিয়া বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল মতিন বলেন কারো দয়ায় নয়, অচিরেই বেগম খালেদা জিয়া সকল মামলায় বেকুসুর খালাস পেয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন কারণ তিনি (বেগম খালেদা জিয়া) সম্পূর্ণ নির্দোষ। তাকে অন্যায় ভাবে একের পর এক মামলায় বন্দি করে রাখা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মনিরুল হক জর্জ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া মানে বাংলাদেশ। একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে এভাবে কারাগারে বন্দি করে রাখা কোনোভাবেই আমরা মেনে নিতে পারিনা। বেগম খালেদা জিয়া গনত্রন্তের মা, আমাদের সকল নেতা কর্মীদের মা, মাকে কারাগারে বন্দি করে রেখে বর্তমান সরকার প্রতিহিংসামূলক রাজনীতির পরিচয় দিচ্ছে। আমি দেশবাসীর নিকট আবেদন করবো সবাই যার যার অবস্থান থেকে শান্তিপূর্ণভাবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে জোরদার করুন। সেইসাথে অসুস্থ কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় সকলে দোয়া করবেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- মেলবোর্ন ছাত্রদলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সাদমান অঙ্কন, অস্ট্রেলিয়া ছাত্রদলের সহ সভাপতি শরীফ হোসেন এবং মেলবোর্ন ছাত্রদলের সদস্য মনির হোসেন ও সুজন খান প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here