এসএসসি পরীক্ষা সফলদের প্রাণঢালা অভিনন্দন

:: ড. কাজী এরতেজা হাসান ::

রবিবার একযোগে প্রকাশ হলো দেশের ১০ শিক্ষাবোর্ডে চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল। বিভিন্ন নামকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দেখা গেছে সফল শিক্ষার্থীদের উল্লসিত ছবি। যারা সেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাস করতে পারেননি নিশ্চয় তাদের সেখানে থাকার কথা নয়। তবে যারা সফল হয়েছেন তাদের প্রতি রইল আমাদের পক্ষ থেকে প্রাণঢালা অভিনন্দন। আর যারা পাস করতে পারেননি তাদের প্রতিও রইল ভবিষ্যতের প্রস্তুতির জন্য অনুপ্রেরণা। এবার পাসের হারে রাজশাহী সবচাইতে এগিয়ে থাকলেও জিপিএ-৫ এ শীর্ষে ঢাকা।

এতেই বোঝা যায়, শিক্ষার গুণগতমানে অন্যান্য জেলার তুলনায় ঢাকা এগিয়ে। তাছাড়া এখানেই রয়েছে দেশের সর্বাধিক সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দেশের সফল শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নেতৃত্বে এদিন সকালে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন। এবারের গড় পাসের হার ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ যা গতবারের চেয়ে কিছুটা কম। গতবার যা ছিল ৮০ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

পাসের হার এবার কম হলেও জিপিএ-৫ পাওয়ার ক্ষেত্রে এবার কিছুটা এগিয়ে এসেছে। এবার মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন শিক্ষার্থী। গতবার পেয়েছিল ১ লাখ ৪ হাজার ৭৬১ জন। সেক্ষেত্রে শিক্ষামন্ত্রী যে বললেন, ‘এবার পাসের হার কিছুটা কমলেও পাসের গুণগত মান বেড়েছে’, সেটা স্বীকার করতেই হয়। গত কবছরে যেভাবে গণহারে পাসের উৎসব দেখা গেছে তাতে গোটা দেশেই সন্দেহের সঙ্গে একটা উদ্বেগ দেখা গিয়েছিল। কেননা নুরুল ইসলাম নাহিদ ২০০৯ সালে শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার বছর এসএসিতে পাসের হার ছিল ৬৭ দশমিক ৪১ শতাংশ। এরপর ধারাবাহিকভাবে বাড়তে বাড়তে তা ২০১৪ সালে ৯২ দশমিক ৬৭ শতাংশ হয়।

আর অবনমনের শুরু ২০১৬ সাল থেকে। অর্থাৎ বিগত দুবছর ধরে এই অবনমন চলছে। এখন এখানেই একটি খটকা জাগতেই পারে। এর আগের বছরগুলোতে যেখানে গণহারে সব পাস করছিল হঠাৎ করে আবার কী এমন কারণ ঘটল যে, তা আবার অবনমনের দিকে ফিরে আসবে? তবে কি আগের পাসের হারও যেমন কৃত্রিম ছিল তেমনি এখন এই অবনমনও কৃত্রিমভাবে সম্পাদিত! অন্যদিকে একসময়ের সফল শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লায় কবছর ধরে দেশের অন্যান্য বোর্ডের তুলনায় টানা সবচেয়ে কম পাসের হার দেখা গেছে। এ নিয়ে গতবছর প্রধানমন্ত্রীও এক বৈঠকে বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন। আর এবছর এমন কী কারণ ঘটল যে, এবার এ শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৮০ দশমিক ৪০ শতাংশ হলো? যার মধ্যে ছাত্র ৮১ দশমিক ২৯ শতাংশ এবং ছাত্রী ৭৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এটা কি তবে অলৌকিক ব্যাপার! গত বছর যেখানে এ বোর্ডটিতে পাসের হার ছিল মাত্র ৫৯ দশমিক ০৩ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৪ হাজার ৪৫০ জন।

তবে কি আগে সেখানে পাসের হারে গুণগত মান ভালো ছিল আর এবার বেশি পাস করায় গুণগত মান কমে গেল! কাজেই আমরা চাই প্রকৃত গুণগত মান। কৃত্রিম নয়। কেননা, তারাই জাতির ভবিষ্যৎ। আগামীদিনের কা-ারি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here