ঈদে রোহিঙ্গাদের জন্য কিছু করতে চান এরশাদ

::নিজস্ব প্রতিবেদক::
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, রমজান মাস সংযমের মাস হলেও জাঁকজমক ইফতার করছি, অথচ রোহিঙ্গারা কীভাবে ইফতার করছে, কীভাবে দিন কাটাচ্ছে তার খোঁজ আমরা রাখছি না। ফিলিস্তিনিদের পাখির মতো গুলি করে মারছে, কোনো প্রতিবাদ নেই। এর মূল কারণ হচ্ছে মুসলিমরা ঐক্যবদ্ধ নয়। রাষ্ট্র ও সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে মুসলমানদের মধ্যে অনৈক্য দূর করতে হবে।
মঙ্গলবার রাজধানীর কদমতলীর বালুর মাঠে শ্যামপুর-কদতমলী থানা জাতীয় পার্টির ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘রমজান এলেই আমাদের দেশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির হিড়িক পড়ে। যা পৃথিবীর কোথাও নেই। এতে প্রতীয়মান হয়, আমরা ইসলামের চর্চা থেকে অনেক দূরে সরে যাচ্ছি। রাষ্ট্রের সর্বক্ষেত্রে যদি ইসলামের চর্চা হতো, তাহলে হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানি থাকতো না। তাই শুধু রমজান মাসেই নয়, আসুন সারাবছর ইসলাম ও আল্লাহর ইবাদত করি।’

ইফতার মাহফিলের আগে এরশাদ জাতীয় পার্টি ঢাকা-৪ আসনের প্রধান নির্বাচনি কার্যালয় উদ্বোধন করেন। ঢাকা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাপার সভাপতি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, সালমা হোসেন, শ্যামপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ৫১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী হাবিবুর রহমান হাবু, ৫৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী নুর হোসেন, জাপা কেন্দ্রীয় নেতা, সুজন দে, শেখ মাসুক রহমান, কাওসার আহমেদ, ইব্রাহিম মোল্লা, শামসুজ্জামান কাজল, সুলতানা আহমেদ লিপি, শাহনাজ পারভীন প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here