অবশেষে মফিজ…

::মহিদুর রহমান হিরা::

সব হারা হয় কত যুবক
নিয়োগ নামের ফাঁদে,
কেউ হয়ে যায় বিপথগামী
কেউ বা শুধুই কাঁদে।
খুব কপালী মফিজ আলী
হয়নি সে বরবাদ,
খরচা গেলেও পার হয়েছে
চাকরি ধরার ফাঁদ।

পুলিশ পদে চাকরি পেল
মফিজ অবশেষে,
ট্রাফিক হয়ে নামলো পথে
ট্রেনিং,শপথ শেষে।
গিলছে ধোঁয়া,খাচ্ছে ধুলো
ভিজছে মাথার ঘামে,
সোনার হরিণ চাকরি কেনা
ছ’লাখ টাকা দামে!

সুদ করা আর কর্য-ধারে
জোগাড় করা টাকা,
চক্রহাড়ে বাড়ছে শুধু
যায় কতদিন রাখা?
পাওনাদারের জ্বালায় মফিজ
শপথ গেল ভুলে,
যে করে হোক লগ্নি টাকা
আনতে হবে তুলে!

ভ্যান,ঠ্যালা বা মালের ট্রাক
যায় না কিছুই বাদ,
যে ভাবে হোক করতে কামাই
নিত্য পাতে ফাঁদ!
কেউ তাকে কয়,’মফিজ মামা’
কেউ বা ডাকে ‘ঠোলা’!
তার জমানো কষ্ট-ব্যাথা
শিঁকেয় রাখা তোলা।

ওস্তাদ আছে, সঙ্গী আছে
ভাগ করে যা’ পায়,
ডিউটি শেষে মফিজ গোনে
মন যে অনেক চায়!
ক্লান্ত মফিজ গভীর রাতে
একলা শুয়ে ভাবে,
কতদিনে সুদ আর আসল
ফেরত আনা যাবে?

এমনি কত হাজার মফিজ
সারা দেশে ঘোরে
কেউ ভাবে না ফাঁদ পাতে ক্যান্
পথের মোড়ে মোড়ে!!

“অবশেষে (সাধারণত)”

বছর দু’য়েক যেতেই হল
ধার-দেনা সব শোধ,
কিন্তু মনের ভিতর ক্যামন
রোবট রোবট বোধ!
সব কিছু আজ গা-সওয়া তার
কামাই করাই নেশা
চাকরি পাবার সিস্টেমে সে
ভুলেই গেছে পেশা!!

আগে ছিল রুটি রুজি
এখন নেশার ফাঁদে,
অবচেতন মনের ভিতর
মানবতা কাঁদে!
ঘুমায় রাতে আরাম করেই
ফ্যালে সুখের দম,
মফিজ এখন পুলিশ বেশী
মানুষ কিছু কম!!!

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here